২৬১ পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীর তালিকা প্রকাশ

নিউজ ডেস্ক: একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগে চিহ্নিত ২৬১ পাকিস্তানি সামরিক কর্মকর্তার নামের তালিকাসহ প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের তথ্য অনুসন্ধান কমিটি।

এতে পাকিস্তানের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট জেনারেল আগা মোহাম্মদ ইয়াহিয়া খান, সেনাপ্রধান জেনারেল আবদুল হামিদ খান, প্রেসিডেন্টের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লে. জেনারেল পীরজাদা, লে. জেনারেল আমির আবদুল্লাহ খান নিয়াজীসহ ৪৩ জন সিনিয়র পাকিস্তানি জেনারেল, মেজর জেনারেল, ব্রিগেডিয়ার, লে. কর্নেল এবং কয়েকজন বেসামরিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার অপরাধের সংক্ষিপ্ত বিবরণও তুলে ধরা হয়।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ ভবনের স্বাধীনতা হলে আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলন ও শ্রমিক কর্মচারী পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদন তুলে ধরতে গিয়ে তথ্য অনুসন্ধান কমিটির আহ্বায়ক মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় ও পরে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত পেপার কাটিং, বই-পুস্তক ও বুদ্ধিজীবীদের লেখা থেকে পাকিস্তানি ২৬১ জন শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীর তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করা হয়েছে। এসব তথ্য-উপাত্ত পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের বিচারে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনের আহ্বায়ক নৌ পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানি সেনা কর্মকর্তাদের বিচারের আওতায় আনার জন্য দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছি। ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থাও পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে। তদন্ত সংস্থাকে সহায়তা করতে যুদ্ধাপরাধ গণবিচার আন্দোলনও একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠন করে পাকিস্তানি ২৬১ জন শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীর তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করছে। শিগগিরই ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থাকে এ প্রতিবেদন হস্তান্তর করা হবে। আশা করছি, এর মাধ্যমে পাকিস্তানি শীর্ষ সেনা কর্মকর্তাদের বিচারের দাবি আদায় করা সম্ভব হবে।’

নৌমন্ত্রী জনগণকে সঙ্গে নিয়ে যুদ্ধাপরাধীদের ও তাদের পরিবারের সদস্যদের নাগরিকত্ব বাতিল, সম্পদ বাজেয়াপ্ত, প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিলসহ বিভিন্ন দাবি আদায় করার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য অনুসন্ধান কমিটির অপর দুই সদস্য ক্যাপ্টেন সাহাবুদ্দিন বীরউত্তম, হাবিবুল আলম বীরপ্রতীক, জাসদের একাংশের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আক্তার এমপি, মুক্তিযোদ্ধা ইসমত কাদির গামা, কামাল পাশা চৌধুরী প্রমুখ।