জলাবদ্ধ ফতুল্লা স্টেডিয়াম, চিন্তিত বিসিবি

নিউজ ডেস্ক:  জলমগ্ন ফতুল্লার খান সাহেব ওসমানী স্টেডিয়াম। গত কয়েকদিন ধরেই পানিতে নিমজ্জিত এ স্টেডিয়ামের ছবি গণমাধ্যমে উঠে এসেছে। স্থানীয় শিল্প-কারখানা থেকে আসা রাসায়নিক বর্জ্য মিশ্রিত পানিতে গত একমাস ধরে জলাবদ্ধ হয়ে আছে ফতুল্লা স্টেডিয়াম। সঙ্গে যোগ হয়েছে গত সপ্তাহের অব্যাহত বৃষ্টি। সবমিলিয়ে পানিতে ডুবে আছে দেশের আন্তর্জাতিক এ ক্রিকেট ভেন্যু।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) রক্ষণাবেক্ষণ করলেও ফতুল্লা স্টেডিয়ামের মালিক জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ (এনএসসি)। এনএসসির বিকার না থাকলেও ফতুল্লা স্টেডিয়ামের জলাবদ্ধতা নিয়ে চিন্তিত বিসিবি। কারণ এ মাঠেই আগামী মাসে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে অস্ট্রেলিয়া। ২২-২৩ আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে ম্যাচটি। বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান হানিফ ভুঁইয়া জানিয়েছেন, এ অবস্থা বজায় থাকলে ফতুল্লায় প্রস্তুতি ম্যাচ আয়োজন কঠিন হবে। তাই বিকল্প ভেন্যুর চিন্তাও করছে বিসিবি।

সবকিছু ঠিক থাকলে ১৮ আগস্ট ঢাকায় আসবে অস্ট্রেলিয়া দল। পানিতে টইটম্বুর ফতুল্লায় প্রস্তুতি ম্যাচ খেলা সম্ভব কি-না জানতে চাইলে হানিফ ভুঁইয়া বলেছেন, ‘ফতুল্লায় খেলা হওয়ার সম্ভাবনা নাই সেটা আমরা বলবো না। আমরা বিসিবি, গণমাধ্যম সবাই এটা নিয়ে কথা বলছি, কিন্তু কোথায় গিয়ে যেন কাজটা এগোচ্ছে না। এনএসসি অনেকবার মিটিং করেছে, বিসিবির অনেকবার চিঠি দিয়েছে। কিন্তু সেই পর্যায়ে কিন্তু অগ্রগতি নেই। আমি মনে করি, এখান থেকে বের হয়ে আসতে হবে নয়তো কঠিন হয়ে যাবে।’

মাঠের অবস্থা সম্পর্কে বিসিবির এ পরিচালক বলেছেন, ‘আমি গিয়েছি, বুয়েটের একটা দল গেছে, টিএনওসহ প্রশাসনের যারা আছে, আশ-পাশের গার্মেন্টস মালিকদের সঙ্গেও কথা হয়েছে। তারা বলেছে করে দেবে। বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির প্রধান হিসেবে মনে করছি, ফতুল্লার এখন যে পরিস্থিতি তাতে ম্যাচ আয়োজন খুব কঠিন হয়ে যাবে। ১৮ তারিখ পর্যন্ত এখনও সময় আছে। তবে এটা খুব চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার।’

মাঠের মালিক হিসেবে এনএসসির বড় ভূমিকা রাখা প্রয়োজন। হানিফ ভুঁইয়া বলেছেন, ‘এখানে এনএসসির একটা বড় ভূমিকা আছে। মাঠটা আমাদের না, আমরা কেবল রক্ষণাবেক্ষণ করি। সেই ক্ষেত্রে আমরা ওইভাবে কাজ করতে পারি না। এটা যদি বিসিবির হাতে থাকতো তাহলে এখনও বলতাম- এটা সম্ভব।’