টাঙ্গাইল মুক্তিযোদ্ধার উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন

মো. রাশেদ খান মেনন (রাসেল), জেলা প্রতিনিধি: মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড টাঙ্গাইল জেলা শাখার উদ্যোগে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় স্বাধীন বাংলাদেশের মহান স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করা হয়। টাঙ্গাইল জেলা ইউনিট মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড টাঙ্গাইল জেলা ও উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ ২২ জুলাই শনিবার বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। এরপর বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া হয়। সমাধির ভিতরে বঙ্গবন্ধু’র কবরের পাশেই রয়েছে তাঁর বাবা-মায়ের কবর। শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদনের সময় উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাইল জেলা ইউনিট মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার খন্দকার জহুরুল হক ডিপটী, বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড টাঙ্গাইল জেলা শাখার আহবায়ক মো. ওমর ফারুক (বিপ্লব), সদস্য সচিব মো. রাশেদ খান মেনন (রাসেল), জেলা আহবায়ক কমিটির সদস্য এম.এ.মামুন নাহিদ, জিয়াদ সিদ্দিক, আবু ইলিয়াস তালুকদার, শেখ সাদী, বিমল আচার্য্য, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড ঘাটাইল উপজেলা শাখার আহবায়ক মো. রুহুল আমিন, সদস্য সচিব আশরাফুল হক সেলিম, নাগরপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক মো. আজিজুল হক (বাবু), সদস্য সচিব মো. মাইদুল ইসরাম (জিপু), কালিহাতী উপজেলা শাখার আহবায়ক মো. মোস্তাফিজুর রহমান (রিপন), সদস্য সচিব আব্দুল হক আকন্দ, গোপালপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক মো. মাহবুবুর রহমান (শামীম), সদস্য সচিব শেখ রাসেল সহ জেলা ও অন্যান্য উপজেলা শাখা সন্তান কমান্ডের নেতৃবৃন্দ। গোপালগঞ্জ শহর থেকে ১৯ কিলোমিটার দূরে টুঙ্গিপাড়া গ্রামে মহান নেতা বঙ্গবন্ধুর সমাধি। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের বুলেটে নির্মমভাবে বঙ্গবন্ধু শহীদ হন। ১৬ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর জন্মস্থান টুঙ্গিপাড়ায় মা-বাবার কবরের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়। ১৯৯৯ সালের ১৭ মার্চ তৎকালিন রাষ্ট্রপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। ২০০১ সালের ১০ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সমাধিসৌধের উদ্বোধন করেন। ৩৮.৩০ একর আয়তনের এই সমাধিসৌধের নির্মাণে খরচ হয় ১৭ কোটি ১১ লাখ ৮৮ হাজার টাকা। সমাধি কমপ্লেক্সের মধ্যে রয়েছে পাঠাগার, গবেষণাকেন্দ্র, প্রদর্শনী হল, পাবলিক প্লাজা, প্রশাসনিক ব্লক, মসজিদ, উন্মুক্ত মঞ্চ, স্যুভেনির শপ ও তথ্যকেন্দ্র।শ্রদ্ধাঞ্জলী নিবেদন ও দোয়ার পর টাঙ্গাইল জেলা ইউনিট মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড টাঙ্গাইল জেলা ও উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ যায় লাইব্রেরী এবং প্রদর্শনী কক্ষে। বঙ্গবন্ধু’কে নিয়ে লেখা বেশিরভাগ বইয়ের লেখা বেশিরভাগ বইয়ের সংগ্রহই সেখানে রয়েছে। সেখানে নের্তৃবৃন্দ মতামত ও পরিদর্শন বইয়ে সাক্ষর করেন। এরপর টাঙ্গাইলের মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের নাগরপুর, কালিহাতী ও গোপালপুর উপজেলার নবগঠিত আহবায়ক কমিটি হস্তান্তর করা হয়।