জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবসে প্রধানমন্ত্রীর বাণী

নিউজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :

“প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে ২৩ জুলাই ২০১৭ ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস’ পালন করা হচ্ছে জেনে আমি আনন্দিত। এ উপলক্ষে প্রজাতন্ত্রের সকল কর্মচারীকে আমি আন্তরিক শুভেচ্ছা জানাচ্ছি এবং দ্বিতীয়বারের মতো ‘জনপ্রশাসন পদক’ প্রদানের উদ্যোগকে স¦াগত জানাচ্ছি।

একটি দক্ষ, কার্যকর, ফলপ্রসূ, আর্থিক সাশ্রয়ী ও সময়োপযোগী প্রশাসনিক ব্যবস্থা টেকসই উন্নয়নের চাবিকাঠি। বাংলাদেশে সিভিল প্রশাসন সরকারের নির্বাহী অঙ্গ হিসেবে দেশের জনগণের সেবা ও কল্যাণে আন্তরিকভাবে নিয়োজিত।

উন্নত সেবাদানের জন্য উচ্চতর দক্ষতার প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। জনগণের দোরগোড়ায় সেবা পৌঁছে দেওয়ার কাজে নিয়োজিত সিভিল সার্ভিসের সদস্যদের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশে ও বিদেশে বিভিন্ন মেয়াদি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। জনগণকে সহজে ও দ্রুত সেবা প্রদানের জন্য প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞানের প্রয়োগ, বিভিন্ন সেক্টরে উদ্ভাবনমূলক ও লাগসই প্রযুক্তি ব্যবহারের বিকল্প নেই। ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের অংশ হিসেবে আইসিটি কার্যক্রমকে উন্নতকরণ, সহজতরকরণ এবং স্বল্প খরচে প্রান্তিক জনগণের নিকট সেবা পৌঁছানোর জন্য আমাদের সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

জনপ্রশাসন পদক প্রদানের সঙ্গে সরকারি কর্মচারীদের প্রণোদনা দানের বিষয়টিও জড়িত। ইতোমধ্যে সরকারি কর্মচারীদের বেতনভাতা উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বৃদ্ধি করা হয়েছে যাতে তাঁরা সম্মানের সঙ্গে জীবনধারণ করতে পারেন। আমি মনে করি, এ পুরস্কার প্রবর্তনের ফলে সরকারি কর্মচারীগণ আগামী দিনগুলোতে আরো উৎসাহ নিয়ে কাজ করবেন এবং বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় নিজেদের আরো দক্ষ ও উপযোগী করে গড়ে তুলবেন।

আগামী ২০২১ সালে আমাদের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী পালিত হবে। এ সময়ের মধ্যে বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার লক্ষ্যে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীগণ সর্বোচ্চ মেধা, শ্রম ও কর্মতৎপরতার স‌্বাক্ষর রাখবেন বলে আমি আশা করি।

‘জনপ্রশাসন পদক ২০১৭’ পদকের জন্য যাঁরা মনোনীত হয়েছেন আমি তাঁদের অভিনন্দন জানাচ্ছি এবং ‘জাতীয় পাবলিক সার্ভিস দিবস ২০১৭’-এর সাফল্য কামনা করছি।
জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”