বেরোবিতে দুদকের চার্জশিটভুক্ত চার কর্মকর্তার পদোন্নতি

নিউজ ডেস্ক: দুর্নীতি দমন কমিশনের দুর্নীতি মামলায় চার্জশিটভুক্ত চার কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দিয়েছে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৩তম সিন্ডিকেট সভায় এই পদোন্নতি দেয়া হয়। নিয়ম ভঙ্গ করে চার কর্মকর্তাকে পদোন্নতি দেয়ার বিষয়টি ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়ার পর ক্যাম্পাসে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়।

সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যারয়ের উপ-রেজিস্ট্রার শাহজাহান আলী মন্ডলকে অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার, উপ-পরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) এটিজিএম গোলাম ফিরোজকে অতিরিক্ত পরিচালক, সহকারী রেজিস্ট্রার মোর্শেদ উল আলম রনিকে উপ-রেজিস্ট্রার, এবং অর্থ ও হিসাব শাখার সহকারী পরিচালক খন্দকার আশরাফুল আলমকে উপ-পরিচালক পদে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ বলেন, পদোন্নতির জন্য তিন সদস্যের বাছাই কমিটিতে আমি সভাপতি হিসেবে থাকলেও মামলার অভিযোগপত্রে ওই চার কর্মকর্তার নাম আসার বিষয়টি আমার জানা ছিল না। বিষয়টি সম্পর্কে সোমবার অবগত হই। যেহেতু আদালতের ব্যাপার তাই আদালত সাজা দিলে ওই কর্মকর্তারা সাজা অবশ্যই পাবেন।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের অনুমোদন ছাড়াই দুর্নীতির মাধ্যমে ৩৪৯ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগের অভিযোগে দুদকের রংপুর সমন্বিত কার্যালয়ের উপ-পরিচালক আবদুল করিম ২০১৩ সালে একটি মামলা করেন। ওই চার কর্মকর্তার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুল জলির মিয়াকে সেখানে আসামি করা হয়। তদন্ত শেষে চলতি বছরের ১৯ মার্চ সাবেক উপাচার্য আব্দুল জলিল মিয়াসহ পদোন্নতি পাওয়া ওই চার কর্মকর্তাকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় দুদক।