টেকসই উন্নয়নের পূর্বশর্ত গবেষণা ও উদ্ভাবন : স্পিকার

নিউজ ডেস্ক: জাতীয় সংসদের স্পিকার ও সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, গবেষণা ও নতুন নতুন উদ্ভাবন টেকসই উন্নয়নের পূর্বশর্ত।

মঙ্গলবার মেট্রোপলিটন চেম্বার্স অব কমার্স আয়োজিত ‘হরাইজন- ২০২০ : অপরচুনিটিস ফর বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স সভাপতি নিহাদ কবীরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আনোয়ার হোসেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নের হেড অব ডেলিগেশন পিয়েরে মেইডন প্রমুখ।

স্পিকার বলেন, এ কর্মসূচি ২০১৪ সালে শুরু হয়েছে। যা ২০২০ সাল পর্যন্ত অব্যাহত থাকবে। ইতোমধ্যে দেশের ১৫টি যৌথ গবেষণা কর্ম ইইউ কর্তৃক গৃহীত হয়েছে। যৌথ উদ্যোগের এ গবেষণা কর্ম একটি নতুন পদক্ষেপ, যেখানে অনেক শেখার সুযোগ রয়েছে।

তিনি বলেন, জলবায়ুর পরিবর্তন ও বাংলাদেশের উপকূলবর্তী এলাকায় লবণাক্ততার প্রভাব মোকাবেলায় কৃষিখাতে গবেষণা ও নতুন নতুন উদ্ভাবন নিয়ে কাজ করতে হবে। খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এ ধরনের গবেষণা সুফল বয়ে আনবে। এছাড়া সামাজিক ও শিল্পখাতের বিভিন্ন বিষয়ে এ গবেষণা হতে পারে।

স্পিকার বলেন, দেশের সমসাময়িক বিষয়গুলোর মধ্যে জনমিতি, তথ্যপ্রযুক্তি, পরিবেশ সম্মত জ্বালানি, ঔষধ শিল্প, ব্লু-ইকনমি, সফটওয়ার শিল্প প্রভৃতি খাতে যৌথ গবেষণা কর্মের সুযোগ রয়েছে। এ সুযোগ কাজে লাগাতে দেশের গবেষক ও উদ্ভাবকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।