পাঁচ বছর পর শিশু ইভা হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন

নিউজ ডেস্ক: ঘটনার প্রায় পাঁচ বছর পর পাঁচ মাস বয়সী শিশু ইভা হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। পুলিশ ইভার চাচা আবুল মিয়া ওরফে আবুল্লাকে (৩৩) গ্রেপ্তার করেছে।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে পিবিআই মৌলভীবাজার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়েছে। পিবিআই মৌলভীবাজার কার্যালয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসলাম উদ্দিন তাঁর লিখিত বক্তব্যে হত্যা ও হত্যার রহস্য উন্মোচনের বিবরণ দেন। এতে বলা হয়েছে, ইসলামনগর গ্রামের মুক্তার মিয়ার ছেলে নিজাম মিয়া ও তার ভাইদের সঙ্গে একই গ্রামের মাসুক মিয়া (৪৫) ও তাঁর ভাইদের বিরোধ ছিল।

২০১২ সালের ১৪ আগস্ট মাসুক মিয়া দলবল নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমিতে গেলে নিজাম মিয়ার স্ত্রী রুবিনা বেগম তাঁর শিশুকন্যা মীমকে কোলে নিয়ে জমিতে গিয়ে বাধা দেন। এ সময় মাসুক মিয়া ও তাঁর লোকজন রুবিনা বেগমকে মারপিট করেন। এ সময় নিজাম মিয়ার মা বিরু বেগম নিজাম মিয়ার পাঁচ মাসের শিশুকন্যা ইভার লাশ হাতে নিয়ে জমিতে ছুটে এসে বলতে থাকেন, মাসুক ও তাঁর লোকজন ইভাকে হত্যা করেছেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে রুবিনা বেগমকে উদ্ধার করে। রাতেই ইভার বাবা নিজাম মিয়া কুলাউড়া থানায় মাসুক মিয়া ও তাঁর লোকজনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ২০১৩ সালের ১৭ জানুয়ারি চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। কিন্তু বাদীর নারাজি আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আবারও অধিকতর তদন্তের জন্য কুলাউড়া থানাকে নির্দেশ দেন।

২০১৪ সালের ৩১ জানুয়ারি আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এবারও নারাজি দেন বাদী। এরপর আদালত জেলা গোয়েন্দা পুলিশকে মামলাটি তদন্তের নির্দেশ দেন। গোয়েন্দা পুলিশও ২০১৫ সালের ২১ এপ্রিল আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল করে। বাদী এবারও নারাজি দিলে আদালত অধিকতর তদন্তের জন্য পিবিআই মৌলভীবাজারকে নির্দেশ দেন।