মঠবাড়িয়ায় প্রবাসীর স্ত্রী হত্যার অভিযোগে৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা

পিরোজপুরপ্রতিনিধিঃ পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার আঙ্গুলকাটা গ্রামের কাতার প্রবাসী নাছিরের স্ত্রী আসমা বেগম (৩৫)কে পরিকল্পিত ভাবে হত্যার অভিযোগে থানা পুলিশ ননদ ফিরোজা বেগমকে শুক্রবার দুপুরে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করেছে। নিঃসন্তান গৃহবধূ আসমা হত্যার ঘটনায় নিহতের মামা জালার মৃধা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার(১৩জুলাই) রাতে মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলায় নিহতের স্বামী নাছির খান (৪০), ননদ ফিরোজা বেগম(৪৮), ননদের ছেলে ফয়সাল মুন্সী(২৫), ননদ-জামাই সালাম মুন্সি (৬৫) সহ ৭জনকে আসামী করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে পিরোজপুর জেলা মর্গে নিহত আসমার লাশের ময়না তদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়।

মামলা সূত্রে জানাগেছে গৃহবধূ, আসমা নিঃসন্তান হওয়ায় প্রবাসী স্বামী নাসিরের নির্দেশে তার বোন, বোনের জামাই ও ছেলেরা মিলে পূর্ব পরিকল্পিতঅনুযায়ী গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হত্যা করে ঘরের আড়ার সাথে মরদেহ ঝুলিয়ে ঘর তালাবন্ধ করে রাখে। ঘটনার দু’দিন পর বৃহস্পতিবার বিকেলে ননদ ফিরোজা বেগম দরজা খুলে পুলিশকে অর্ধগলিত লাশ দেখিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে হত্যাকান্ডকে ভিন্ন খাতে প্রভাহিত করার চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ ননদ ফিরোজাকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে শুক্রবার ওই মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার (এসআই) মো. মজিবুর রহমান জানান, ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ননদকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকী আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রসংগত, মঙ্গলবার বিকেলে থানা পুলিশ উপজেলার আঙ্গুলকাটা গ্রামের আবদুল লতিফ খানের পুত্র কাতার প্রবাসী নাছির খানের তালাবন্ধ ঘর থেকে তার স্ত্রী আসমা বেগমের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে।