ডিষ্টিক এসোসিয়েশন ইউএসএ’র নির্বাচন নিয়ে প্রবাসীদের সভা

হাকিকুল ইসলাম খোকন: প্রবাসের অন্যতম সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র ২০১৭-২০১৮ এর নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটিকে ৩ মাসের সময় দিয়েছে এবং একটি নির্বাচন কমিশনও গঠন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

গত ৯ জুলাই রবিবার সন্ধ্যা ৬টায় নিউইয়র্কের বাঙ্গালী অধ্যষিত জ্যামাইকার পানসি রেষ্টুরেন্টে নির্বাচনে অংশ নেয়ার জন্য কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশনের কার্যকরী কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ সদস্য ও আনোয়ার-এনাম পরিষদের সমর্থকদের নিয়ে এক যৌথ মতবিনীময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রকৌশলী আশরাফুল হক ও সভা পরিচালনা করেন কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র অন্যতম উপদেষ্টা ও আনোয়ার-এনাম পরিষদের সমর্থক সদস্য সচিব জায়দুল কবীর খান সারওয়ার ।

সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক উপদেষ্টা ও সাবেক সভাপতি প্রবীন প্রবাসী আবদুল আওয়াল সিদ্দিকী,সাবেক উপদেষ্টা এএসএম ফেরদৌস, হেলাল আহমেদ,সাবেক উপদেষ্টা হাকিকুল ইসলাম খোকন, উপদেষ্টা হাবিব রহমান হারুন, আব্দুর রাজ্জাক, বেলাল হোসেন, সহ-সভাপতি আনোয়ার উদ্দিন খান ও রফিকুল ইসলাম ডালিম, এনামুল হক, জাবির হোসেন তাকবির, হুমায়ুন কবির, মিল্টন সরকার, শামীম আকন্দ, নূরুল কবির খান,হাবিবুর রহমান কামাল, নূরুল ইসলাম,তপন বিশ^াস, বিশ^জিৎ শর্মা, জসিম উদ্দিন।

জাহাঙ্গীর জামিল দিপু, মোঃ সুজন, তানভীর রায়হান, ফেরদৌস হাসান, আঃ হালিম,আঃ করিম জুয়েল মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ মহিবুর রশীদ সুজন বদরুল ইসলাম মাসরু, ইন্দ্রজিৎ সরকার, তারক চন্দ্র পন্ডিত, ইমরুল হাসান, নূরুল ইসলাম খান, হুমায়ুন খানসহ আরো অনেকে । সভায় সংগঠনকে সঠিক ও নিয়মতান্ত্রিক ভাবে এবং সঠিক সময়ে নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করা হয়। সভায় কিশোরগঞ্জ ডিষ্টিক এসোসিয়েশন অব ইউএসএ’র সভাপতি মফিজুর রহমান দুলালের সাথে আলোচনার মাধ্যমে গঠনতন্ত্র মোতাবেক নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য সাবেক উপদেষ্টা ও সাবেক সভাপতি প্রবীন প্রবাসী আবদুল আওয়াল সিদ্দিকী,সাবেক, প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রকৌশলী আশরাফুল হক, উপদেষ্টা এএসএম ফেরদৌস, হেলাল আহমেদ,সাবেক উপদেষ্টা হাকিকুল ইসলাম খোকন, উপদেষ্টা ও আনোয়ার-এনাম পরিষদের সমর্থক সদস্য সচিব জায়দুল কবীর খান সারওয়ার ও উপদেষ্টা হাবিব রহমান হারুনকে নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এ প্রতিনিধিকে নাম প্রকাশ না করায় সর্তে জানান কতিপয় উপদেষ্টা ও কর্মকর্তা সংগঠনের ভাবমূর্তি বিন্ষ্ট করার প্রতিযোগিতায় মেতেছেন। এবং যথা সময়ে নির্বাচন না করে বর্তমান কমিটিকে দীর্ঘদিন বহাল রাখার ষড়যন্ত্র করেছেন বলে অভিযোগ। নির্বাচনের জন্য কমিশন গঠন করা হলে এখনও পর্যন্ত কমিশনের সদস্যদের জানানো হয়নি।

উক্ত সভায় নির্বাচন কমিশনের একজন সদস্য উপস্থিত ছিলেন এবং তিনি বলেছেন তিনি এখনো পর্যন্ত এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না,তিনি শুনেছেন ।

উল্লেখ্য, সংগঠনের মেয়াদ ছিলো ৩০ এপ্রিল ২০১৭। পরবর্তীতে সংগঠনের একটি সভায় তিন মাসের জন্য ৩১ জুলাই পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। কিন্তুু বর্তমান কমিটির কতিপয় কর্মকর্তা নির্বাচনের ব্যাপারে কোন অগ্রগতির ব্যাপারে কার্যক্রম পরিচালনা করছেন না। এ নিয়ে সংগঠনের সাধারন সদস্যদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঐতিহ্যবাহী এই সংগঠনের কার্যক্রম এমন পর্যায়ে কখনো ছিলনা।

জানা গেছে ছয়শত ৪৫ জন সাধারন সদস্যের খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হলেও নির্বাচন নিয়ে বর্তমান কমিটির কতিপয় কর্মকর্তা এবং উপদেষ্টা পরিষদের কতিপয় সদস্যের মনোবাসনা পূরনের জন্য সঠিক সময়ে নির্বাচন না দিয়ে এই কমিটিকে অগঠনতান্ত্রিকভাবে কার্য পরিচালনায় চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগে জানা গেছে।

সাধারন সদস্যগণ অভিলম্বে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে গণতান্ত্রিক ও সঠিক সময়ে নির্বাচনের জোর দাবী জানাচ্ছেন। জানা গেছে ৩১ জুলাইয়ের মাঝে নির্বাচন অনুষ্টিত না হলে বর্তমান কমিটির বর্ধিত মেয়াদ শেষ হবে। তখন সংগঠনের সাংবিধানিক সংকট হবে। তখন উপদেষ্টা পরিষদ সংগঠনের কার্যক্রম পরিচালনা করবেন এবং অল্প সময়ের মাঝে নির্বাচন করবেন বলে এমনটি জানাগেছে ।