প্রশাসনে ব্যাপক পরিবর্তন সুদূরপ্রসারী: রিজভী

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন এবং ডিসেম্বর থেকে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সময় আসার সাথে সাথেই পরিকল্পিত গণবদলি ও পদোন্নতির ঘটনা ঘটানো হচ্ছে কিনা সেটি নিয়ে সকলের মনে বড় ধরনের প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে মাঠ প্রশাসনের এই ব্যাপক পরিবর্তন একটি সুদূরপ্রসারী নীল নকশারই অংশ।

বুধবার দুপুরে দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

রিজভী বলেন, আজকে একটি দৈনিক পত্রিকায় নির্বাচন কমিশনের নিয়োগ-পদোন্নতি কমিটির যিনি প্রধান তিনি গণবদলি ও পদোন্নতির ঘটনার বিষয়ে কিছুই জানেন না খবর প্রকাশিত হয়েছে। “ইসির নিয়োগ, পদোন্নতি, প্রশাসনিক সংস্কার ও পুণর্বিন্যাস এবং দক্ষতা উন্নয়ন কমিটির প্রধান নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার এ বিষয়ে ইসি’র সচিবকে নোট দিয়েছেন। এই চাঞ্চল্যকর ঘটনা দেশবাসীর মধ্যে বিস্ময় সৃষ্টি করেছে। এতে স্বয়ং ইসি’র অনেক কর্মকর্তাও ক্ষুদ্ধ হয়েছেন। এই ঘটনায় কমিশনের শুধু ভাবমূর্তিই নষ্ট হয়নি বরং এতে নির্বাচন কমিশনের কর্মকাণ্ড বিশাল প্রশ্নের সম্মুখীন হয়েছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, তেল, গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি সুন্দরবনবিনাশী সকল প্রকল্প বাতিলের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার সারাদেশে সভা-সমাবেশ করে। নারায়ণগঞ্জের সমাবেশে আন্দোলনকারী সাংস্কৃতিক কর্মীদের ওপর সরকারের পেটোয়া বাহিনী হামলা চালায়। এতে বেশ কয়েকজন উক্ত সংগঠনের নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়।

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, গতকাল অর্থমন্ত্রী সংসদে বলেছেন, ‘সুইস ব্যাংকে অর্থ পাচার হয়নি, লেনদেন হয়েছে। আবার তিনি এও বলেছেন যে, তবে সামান্য কিছু অর্থ পাচার হয়েছে।’ এর আগে মাত্র কয়েকদিন আগে সিলেটের এক সভায় অর্থমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘সুইস ব্যাংকসহ বিভিন্ন দেশে অর্থ পাচারে আমরাও দায়ী।’ এ ধরনের স্ববিরোধী বক্তব্য আওয়ামী নেতাদের চিরাচরিত টেকনিক। আসলে ক্ষমতাসীনদের উচ্চ পর্যায়ের অনেক নেতারাই এই লাখ লাখ কোটি টাকা পাচারে জড়িত বলেই তাদের চাপেই অর্থমন্ত্রীকে আগের কথা থেকে সরে আসতে বাধ্য করা হয়েছে, তাকে আবারো বলির পাঠা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা এ জেড এম জাহিদ হোসেন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, খায়রুল কবির খোকন, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।