মাশরাফি যতদিন পারবে ততদিন খেলবে: পাপন

নিউজ ডেস্ক:  বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বক্তব্যর সূত্র ধরেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে এ নিয়ে ছাপা হয়েছে প্রতিবেদনও। এ নিয়ে কথা বলেছেন মাশরাফি নিজেও। বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক বলেছেন, তিনি নেতৃত্বের জন্য খেলেন না। মাশরাফি এটাও বলেছেন, তিনি যতদিন ফিট থাকবেন ততদিন খেলা চালিয়ে যেতে চান।

শ্রীলংকা সিরিজের সময় হঠাৎ করেই টি-টোয়েন্টির নেতৃত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন মাশরাফি। এর পর থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রবেশ করে তিন অধিনায়কের যুগে। টেস্টে মুশফিক, ওয়ানডেতে মাশরাফি ও টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দলপতি সাকিব আল হাসান। মাশরাফির নেতৃত্বেই বাংলাদেশ অংশ নেয় ত্রিদেশীয় সিরিজ ও চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে দারুণ খেলেছে টাইগাররা। প্রথমবারের মতো উঠেছিল বৈশ্বিক কোনো টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালে। মাশরাফির নেতৃত্বে দল সাফল্য পেলেও বিসিবি সভাপতির কিছুদিন আগের সংবাদ সম্মেলনে আভাস মিলেছিল, ২০১৯ বিশ্বকাপ সামনে রেখে তারা নেতৃত্ব নিয়ে ভাবছেন। মাশরাফিকে সরিয়ে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠেয় ওই বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের নেতৃত্বের ঝান্ডা তুলে দেওয়া হতে পারে অন্য কারো হাতে। এর পর থেকেই আবারও আলোচনায় উঠে আসেন মাশরাফি। তা হলে কি ৫০ ওভারের ক্রিকেটের নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হচ্ছে ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’কে?

আলোচনা-সমালোচনা ডালপালা মেলার আগেই তা ছেঁটে দিলেন নাজমুল হাসান। মাশরাফি-ইস্যুতে নিজের অবস্থান পরিষ্কার করলেন তিনি। গতকাল মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাফ জানিয়ে দিলেন মাশরাফিকে বাদ দেওয়ার কোনো পরিকল্পনা নেই তাদের। তিনি এটাও স্পষ্ট করে বলেছেন, সে শুধু একজন খেলোয়াড়ই নয়, একজন অধিনায়কও। মাশরাফির মতো অধিনায়ক বাংলাদেশে খুঁজে পাওয়া কঠিন বলেও মন্তব্য করেছেন বিসিবি সভাপতি। তিনি বলেন, ‘আমাদের মাথায় কিন্তু সব সময়ই থাকে সাকিব চলে গেলে কী হবে, মুশফিক চলে গেলে কী হবে। এমন ভাবনা তো থাকবেই; কিন্তু এমন একটা ভাব হচ্ছে, মাশরাফিকে যেন আজই বাদ দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ব্যাপারটা তা নয়। মাশরাফি যতদিন পারবে ততদিন খেলবে। তাকে বাদ দেওয়ার প্রশ্নই ওঠে না।’

নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ভারতের এমএস ধোনির উদাহরণ দিয়ে যে, ধোনি ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলবে না বলে এখনই ভারত তাদের নতুন অধিনায়ক এনেছে। বাংলাদেশে আমাদের সেই পরিকল্পনা আছে কিনা। আমি বলেছিলাম, এটার যে চিন্তাভাবনা আছে, সেটার সবচেয়ে বড় উদাহরণ টি-টোয়েন্টি। পরের বিশ্বকাপের কথা ভেবে যেটা আমরা করেছি। কিন্তু ওটার সঙ্গে ওয়ানডের কোনো সম্পর্ক নেই।’

বিসিবি সভাপতি জানালেন, অধিনায়কত্ব নিয়ে মাশরাফির সঙ্গে তার কোনো আলোচনাই হয়নি। তিনি বলেন, ‘সামনে আমাদের অনেক খেলা আছে। তার আগে মাশরাফির বিকল্প না খুঁজেই অধিনায়কত্ব পরিবর্তনের প্রশ্ন কী করে আসে? আমরা যা কিছুই করি সেসব সংশ্লিষ্ট খেলোয়াড়দের সঙ্গে আলাপ করেই করি। আর ওয়ানডের অধিনায়কত্ব নিয়ে মাশরাফির সঙ্গে আমার কোনো কথাই হয়নি।’

শুধু অধিনায়ক হিসেবেই নয় মাশরাফি দলের অন্যতম সেরা পেসার বলেও মন্তব্য করেছেন বিসিবি সভাপতি। নাজমুল হাসান বলেন, ‘ওয়ানডেতে মাশরাফির দলে থাকা কিংবা না থাকা নিয়ে সেদিন কোনো কথাই হয়নি।