কটিয়াদীতে ভারীবর্ষনে রাস্তা ঘাটের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

কটিয়াদী(কিশোরগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ কিশোগঞ্জের কটিয়াদীতে ভারীবর্ষনের কারণে উপজেলার সদরসহ জালালপুর ইউনিয়নের চরঝাকালিয়া,চরপুক্ষিয়া, জালালপুর,চরনোয়াকান্দি ৪টি গ্রাম তলিয়ে গেছে এবং কোটি টাকার উন্নয়ন মুলক কাজ বৃষ্টির পানিতে ভেস্তে গেছে ও কাচারাস্তা, কালভার্ট, অনেক বাড়ী ঘর বৃষ্টির পানিতে ডুবে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে।

জালালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান রুস্তমের এলাকায় বিশিষ্ট শিল্পপতি হাজী আমির হোসেনের বাড়ী সংলগ্ন ৫০ বছরের পুরাতন কালভার্টসহ এক সাথে কয়েকটি কাচা রাস্তার উন্নয়ন মূলক কাজ করার পর ভারী বর্ষনে ভেঙ্গে ব্যবপক ক্ষয় হওয়ায় এলাকাবাসীর চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এছাড়া কটিয়াদী পৌরসদরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকার করণে পানির জলাবদ্ধতা এবং রাস্তা ঘাট ভেঙ্গে যাওয়ায় পৌরবাসীর ব্যাপক দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে কটিয়াদী ঊপজেলা পৌর সদর, জালালপুর ইউনিয়ন , মসুয়া ও চান্দপুর ইউনিয়নে ভারীবর্ষনের ফলে কাচা রাস্তা ভেঙ্গে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি সহ জনজীবন অতিষ্ট হয়ে পড়েছে।

চরপুক্ষিয়া গ্রামের একজন প্রবীন লোক মোঃ শহিদুল্লাহ জানান, এ বছর সবচেয়ে বড় ভারীবর্ষন হয় যা স্বাধীনতার সংগ্রামের পর আর দেখি নাই।এ রকম ভারীবর্ষন হয়েছিল ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার সংগ্রামে সময় যার কারনে পাকিস্তানি বাহিনীরা জালালপুর ইউনিয়নে আক্রমন করতে পারেনি।