ঈশ্বরদীতে রাস্তার জন্য মানব-বন্ধন ও বিক্ষোভ

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা: ঈশ্বরদী উপজেলার সলিমপুর ইউনিয়নের জয়নগর ন্যাংড়ার দোকান এলাকায় রাস্তার দাবিতে গতকাল শনিবার বিকেলে মাবন-বন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে ওই এলাকাবাসি। ন্যাংড়ার দোকান এলাকায় আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন ফকির নামের এক ব্যক্তি জায়গা ক্রয় করে গোরস্থানে যাতায়াতের রাস্তা বন্ধ করে সেখানে অটোরাইস মিল নির্মানের জন্য কাজ শুরু করেছেন। এলাকাবাসির তোপের মুখে কাজ বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছেন আনোয়ার হোসেন ফকির। সলিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা ওই এলাকায় উপস্থিত হয়ে মিলের কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন।

এলাকাবাসি অভিযোগে জানান, দির্ঘ দিন থেকে এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। গোরস্থান এবং মাদ্রাসায় যাতায়াতের জন্য এলাকাবাসির এটিই এক মাত্র রাস্তা। আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন ফকির সাহেব জায়গা ক্রয় করে সেখানে অটো মিল নির্মানের জন্য কাজ শুরু করেছেন। আমরা এলাকাবাসি তাকে রাস্তা বন্ধ না করার জন্য বলা হলেও তিনি কর্ণপাত না করে গায়ের জোরে মিল নির্মাণের প্রাথমিক কাজ শুরু করেছেন।

স্থানীয় বাসিন্দা পিন্টু মন্ডল, খলিলুর রহমান, আকবর আলী, মরিয়ম বেগম, আমছের আলী, মালেকা বেগম, জহুরুল ইসলাম, মিজানুর রহমান রঞ্জু সাংবাদিকদের বলেন, এটি দির্ঘ দিনের একটি পুরাতন রাস্তা। কয়েক গ্রামের শত শত মানুষের চলাচলের এটিই একমাত্র রাস্তা। গোরস্থান ও মাদ্রাসায় যাতায়াদের এটিই একমাত্র প্রধান রাস্তা। এলাকাবাসির চলাচলে ব্যাঘাত ঘটিয়ে কেউ মিল নির্মাণ করতে পারেনা। সংবাদপত্রের মাধ্যমে আমরা রাস্তা নির্মাণের জোর দাবি জানাচ্ছি।

স্থানীয় ইউপি সদস্য প্রদপ্রার্থী মিনারুল ইসলাম বলেন, বুদ্ধির পর থেকে দেখে আসছি এই রাস্তা দিয়ে কয়েক গ্রামের মানুষ যাতায়াত করে আসছেন। এই রাস্তা দিয়ে গোরস্থানে যেতে হয়। আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন ফকির জায়গা ক্রয় করার পর সেই রাস্তার উপরে মিল নির্মাণের কাজ শুরু করেছেন। এই রাস্তার উপরে মিল নির্মাণ হলে ওই গ্রামের মানুষেদের লাশ নিয়ে গোরস্থানে যেতে নানাবিধ সমস্যায় পড়তে হবে।

সলিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ বাবলু মালিথা বলেন, অটোমিল নির্মাণে আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন ফকির আমাদের পরিষদের কোন অনুমোতি নেয় হয়নি। তিনি জায়গা ক্রয় করে রাস্তার উপর মিল নির্মাণের প্রাথমিক কাজ শুরু করেছেন। সাধারন মানুষের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে কেউ মিল নির্মাণ করতে পারেনা। এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে পরিষদের পক্ষ থেকে মিলের কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে মোবাইলে কথা হলে আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন ফকির বলেন, রাস্তা বন্ধ করার প্রশ্নই উঠেনা। আমি আমার ক্রয়কৃত জমির উপর মিল নির্মাণের কাজ শুরু করেছি। একটি মিলের মাঝ দিয়ে কেউ কখনো রাস্তা দিবেনা। আমি আমার নিজস্ব জায়গার উপর একটু ঘুরিয়ে রাস্তা করার জন্য জায়গা দিতে চেয়েছি।