ফ্রি ওয়াইফাই জোন তরুণদেরকে ডিজিটাল হতে সহায়তা করবে – কাউন্সিলর ডেইজী সারওয়ার

বিশেষ প্রতিবেদন : ডিজিটাল বাংলাদেশ তথা ডিজিটাল সমাজ গঠনের জন্য আমাদের তরুণ সমাজকে আধুনিক টেকনোলজির সাথে পরিচিত হতে হবে ও এর নিয়মিত ব্যবহার করতে হবে। বাংলাদেশ এর সবচাইতে বড় সম্পদ এদেশের তরুণ প্রজন্ম।

তরুণরাই পারে একটি দেশের অবস্হাকে সামনের দিকে ধাবিত করতে। ফ্রি ওয়াইফাই জোন এদেশের তরুণ সমাজকে ডিজিটাল হওয়ার পথে ব্যাপকভাবে সহায়তা করবে বলে মনে করেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন এর সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ডেইজী সারওয়ার। আমাদের ন্যাশনাল ও ফিচার ডেস্ক এডিটর মো.জুয়েল আহমেদ এর সাথে কাউন্সিলর ডেইজী সারওয়ার এক সাক্ষাৎকারে তরুণদের সম্ভাবনার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা করেছেন।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধে তরুণরাই সবচাইতে বেশি ভূমিকা পালন করেছে। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টার ফলে আমরা একটি স্বাধীন দেশ পেয়েছি। সঠিক দিক নির্দেশনার অভাবে তরুণ সমাজের একটি অংশ বিপদগামী হচ্ছে। এমন অনেক তরুণ আছে, যারা ভালোভাবে বুঝতে পারছে না যে তারা কোন পথে যাবে? কোন পথটি তাদেরকে এগিয়ে নিবে? সমাজের প্রতিষ্ঠিত প্রত্যেক মানুষের উচিত যে, যেহেতু তরুণরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, সেহেতু আমাদেরকে তাদের সঠিক পথ দেখাতে হবে।

অনেক তরুণ রয়েছে যারা ঘরে বসে অলস সময় কাটাচ্ছে। তাদেরকে ইন্টারনেট ব্যবহারের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে অবহিত করা যেতে পারে, কিভাবে ইন্টারনেটকে কল্যাণকর কাজে লাগিয়ে তরুণরা সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে ইত্যাদি বিভিন্ন বিষয়ে। ঢাকা সিটি এর বিভিন্ন জায়গায় ফ্রি ওয়াইফাই জোন করে দেয়া যেতে পারে যাতে তরুণ /শিক্ষার্থীরা খুব সহজেই বিনামূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহার করে শিক্ষা সংক্রান্ত সেবা অতি অল্প সময়ের মধ্যেই পেতে পারে। এছাড়াও কর্মমুখী শিক্ষার বিভিন্ন বিষয় ও প্রতিস্হাপন করা যেতে পারে সেই নির্দিষ্ট সেবায়। তরুণরা এখান থেকে অজানা অনেক কিছুই জানতে পারবে যা তাদের ব্যবহারিক জীবনে কাজে আসবে।

যেসব জায়গায় ফ্রি ওয়াইফাই জোন স্হাপন করা হবে, সে বিষয়ে তরিণদেরকে বিভিন্নভাবে সচেতন কররতে হবে বা জাননাতে হবে যাতে তরুণরা এখান থেকে সবসময়ই সঠিকভাবে সেবা পেতে পারে। ফ্রি ওয়াইফাই জোন সম্পর্কে যখনই তরুণরা জানবে তখনই তারা যেখানে এসেবাটি চালু করা হয় বা হবে, সেখান থেকে এ সেবা গ্রহণ করবে এবং ফ্রি ওয়াইফাই জোন স্হাপন করার স্বার্থকতা দৃশ্যমান হবে।

কাউন্সিলর ডেইজী সাররওয়ার তার নির্বাচনী এলাকা মোহাম্মদপুরে ” ফ্রি ওয়াইফাই জোন ” এ সেবাটি দ্রুত চালু করতে চান যাতে এখান থেকে তরুণরা এসেবা পেয়ে উপকৃত হয়, আধুনিক দেশ গড়তে তরুণরা একধাপ এগিয়ে যায়।