সৌদি জোটের দেয়া শর্তের জবাব দিল কাতার

নিউজ ডেস্ক: কাতার সোমবার সৌদি আরব ও তার মিত্রদের দেয়া শর্তের জবাব দিয়েছে। তাদের দাবি পূরণের জন্য দোহাকে আরো ৪৮ ঘণ্টা সময় দেয়ার পর কাতারের পক্ষ থেকে এ জবাব জানালো হল। তবে কাতারের পক্ষ থেকে কি জবাব দেয়া হয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

একজন উপসাগরীয় কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা জানান, কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ বিন আব্দুল রাহমান আল-থানি কুয়েতে সংক্ষিপ্ত সফরকালে দেশটির কাছে দোহার জবাব হস্তান্তর করেন। উল্লেখ্য, কুয়েত এই সংকট নিরসনে মধ্যস্থতা করছে।

সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মিশর গত ২২ জুন তাদের ১৩টি দাবি মেনে নেয়ার জন্য কাতারকে ১০ দিনের সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিল। গত রবিবার রাতে তাদের পূর্ব নির্ধারিত সময়সীমা শেষ হয়। সোমবার তা আরো ৪৮ ঘন্টা বাড়ানো হয়। তবে এক যৌথ বিবৃতিতে তারা জানিয়েছে, কুয়েতের আমিরের অনুরোধে তারা এ সময়সীমা বাড়িয়েছে।

সৌদি জোটের দাবিগুলোর মধ্যে দোহাকে মুসলিম ব্রাদারহুডের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার, সংবাদ মাধ্যম আল-জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ, ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস ও ইরাকে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধ অন্যতম। এর আগে শেখ মোহাম্মদ বলেছিলেন, শর্তের তালিকাটি প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে এবং সোমবার কাতারের পক্ষে ব্রিটিশ আইনজীবীরা এসব দাবিকে ‘আন্তর্জাতিক আদালতের স্পষ্ট লঙ্ঘন’ হিসেবে অভিহিত করেন।

সৌদি আরব, মিসর, ইউএই এবং বাহরাইনের অভিযোগ, কাতার মুসলিম ব্রাদারহুডসহ কট্টর ইসলামপন্থী একাধিক সংগঠনকে মদদ দেয়। আল-জাজিরা টেলিভিশন চ্যানেলও এই কট্টরপন্থীদের সহযোগিতা করে। এছাড়া আঞ্চলিক শত্রু হিসেবে পরিচিত ইরানের সঙ্গেও দোহার সুসম্পর্ক আছে।

তবে কাতার এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। বলা হচ্ছে, আরব উপসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলো গত কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে পড়েছে।