বর্ষীয়ান সাংবাদিক অমিত বসু আর নেই

নিউজ ডেস্ক: প্রবীণ সাংবাদিক অমিত বসু আর নেই। সোমবার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে উত্তর কলকাতার রামকৃষ্ণ দাস লেনে নিজ বাড়িতে মারা যান তিনি। দু’মাস আগে ক্যান্সার ধরা পড়েছিল তার ফুসফুসে। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১ বছর।

বৃদ্ধা মা, একমাত্র পুত্র ছাড়াও এক দিদি ও এক ভাই-সহ অসংখ্য স্বজন-বন্ধু এবং সাংবাদিক সহকর্মী রেখে গেলেন অমিত বসু। তার মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন কলকাতা প্রেসক্লাবের সভাপতি স্নেহাশিস শুর এবং সম্পাদক কিংশুক প্রামাণিক-সহ কলকাতা এবং বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমে কর্মরত বহু সাংবাদিক। শোক প্রকাশ করেছেন কলকাতার বাংলাদেশ উপদূতাবাসের ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি হাইকমিশনার মিয়া মুহম্মদ মাইনুল কবির।

অমিত বসুর বোন সুমিতা ঘোষ তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে জানান, অনেক রাত পর্যন্ত লেখালেখি করত অমিত। রোববার শেষ রাতের দিকে কিছু সময় ছাদে পাইচারী করে ঘুমিয়ে পড়েছিল। সকালে কোনও সাড়াশব্দ না পেয়ে গৃহপরিচারিকা সবাইকে খবর দেন। পারিবারিক চিকিৎসক এসে তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

অমিত বসু দীর্ঘ দিন বাংলাদেশের গণমাধ্যমে যুক্ত ছিলেন। একই সঙ্গে কলকাতার ‘তারা নিউজ’-এর বাংলাদেশ বিষয়ক সম্পাদকদের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।

কলম লেখার পাশাপাশি কয়েক বছর ধরে নিয়মিত উপন্যাসও লিখে গেছেন অমিত বসু। মরমিয়া, বিহান, উজান তার লেখা উপন্যাসের মধ্যে কয়েকটি।