বন্যায় দূর্গতদের পাশে থাকবে সরকার: ত্রাণ মন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, বন্যা প্লাবিত মানুষের দুর্ভোগের অবসান না হওয়া পর্যন্ত সরকার তাদের পাশে থাকবে। তাদেরকে সব ধরণের খাদ্য সহায়তা সহ প্রয়োজনীয় ঔষধপত্র দেওয়া হবে। মন্ত্রী আজ মৌলভীবাজার কুলাউড়া উপজেলার সাধীপুর বাজারে বন্যা প্লাবিত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের সময় একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, অকাল বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে এলাকার মানুষ বিগত মার্চ মাস থেকে দুর্ভোগের স্বীকার হয়েছে এবং সরকারও তাদের সব ধরনের সহায়তা দিয়ে আসছে। তিনি বলেন, সাম্প্রতিক আগাম বন্যায় মৌলভীবাজারে প্লাবিত এলাকার মানুষের জন্য ৩শ মে. টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ভারী বৃষ্টিপাত, শিলাবৃষ্টির কারণে ভেঙ্গে যাওয়া ঘরবাড়ি পুনঃনির্মাণের জন্য ১ হাজার বান্ডিল ঢেউটিন ও ৩০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যে সব মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রয় নিয়েছে তাদের সাধারণ বরাদ্দের পাশাপাশি শুকনো খাদ্য চিড়া, মুড়ি, ডাল, ময়দাসহ ২ হাজার প্যাকেট ত্রাণ সামগ্রী বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

মানুষের দুর্ভোগ লাঘব না হওয়া পর্যন্ত সরকারের সব ধরণের সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে তিনি আশ্বাস দেন। মন্ত্রী পরে সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জে মাইজগাঁও ইউনিয়নে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় স্থানীয় সংসদ সদস্য মাহমুদ সামাদ চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন। ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ শেষে তিনি সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা দুর্যোগ কমিটির সভায় যোগদান করেন। তিনি বন্যা প্লাবিত এলাকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান ।

ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ নিয়ে স্বজন প্রীতি, দলীয়করণসহ যে কোন ধরণের অনিয়মের বিরুদ্ধে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন মন্ত্রী। বন্যায় যাতে কোনো মানুষ না খেয়ে কষ্ট না পায় তার জন্য ত্রাণ সামগ্রী বিতরণে সতর্কতা ও আন্তরিকতার নির্দেশ দেন মন্ত্রী।
প্লাবিত এলাকার সাথে নিবিড় যোগাযোগ রক্ষা করে ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ তৈরিকরণ ও সার্বক্ষণিক মানুষের পাশে থাকার আহ্বান জানান তিনি। দলমত নির্বিেেশষে সকলকে বন্যায় প্লাবিত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান জানান তিনি।

স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল মতিন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শাহ্ কামাল, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. রিয়াজ আহমেদসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ এসময় উপস্থিত ছিলেন।