কারণ ছাড়া বাড়ছে রূপালী ব্যাংকের শেয়ার দর

নিউজ ডেস্ক: রূপালী ব্যাংকের শেয়ার দর কারণ ছাড়াই বাড়ছে বলে তথ্য প্রকাশ করেছে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। মঙ্গলবার ডিএসই এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

ডিএসই জানিয়েছে, সম্প্রতি প্রতিষ্ঠানটির কাছে শেয়ার দর অস্বাভাবিক বাড়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়। উত্তরে রূপালী ব্যাংক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে শেয়ার দর অস্বাভাবিক বাড়ার মতো তাদের কাছে কোনো অপ্রকাশিত মূল্য সংবেদশীল তথ্য নেই।

গত ৭ জুন থেকে রূপালী ব্যাংকের শেয়ার দর টানা বাড়ছে। ৭ জুন প্রতিষ্ঠানটির প্রতিটি শেয়ারের দাম ছিল ২৫ টাকা। ১৮ জুন তা বেড়ে ২৬ টাকা ৮০ পয়সা হয়। এরপর ২৯ জুন বেড়ে দাঁড়ায় ২৭ টাকা ৮০ পয়সায়।

মূলত এরপর থেকেই অস্বাভাবিকভাবে বাড়তে থাকে রূপালী ব্যাংকের শেয়ার দর। এক কার্যদিবসের ব্যবধানে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দাম বেড়ে ৩০ টাকা ৫০ পয়সায় পৌঁছে যায়। তবে এমন দাম বাড়লেও ওই দিন কোন বিনিয়োগকারী রূপালী ব্যাংকের শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি।

পরের কার্যদিবস ৩ জুনও প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার বিক্রির মতো কোন বিনিয়োগকারী ছিল না। ওই দিন ৩০ টাকা ৫০ পয়সা থেকে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দাম বেড়ে এক লাফে ৩৩ টাকা ৫০ পয়সায় চলে যায়। মঙ্গলবার এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দাম ৩৬ টাকায় পৌছে গেছে।

ঈদের পরের প্রথম কার্যদিবস থেকেই শেয়ারবাজারে তথ্য ছড়িয়ে পড়ে চলতি বছরের প্রথম অর্ধে (জানুয়ারি-জুন) রূপালী ব্যাংকের পরিচালন মুনাফায় বড় ধরনের উল্লম্ফন ঘটেছে। আগের বছরের তুলনায় চলতি বছরের প্রথম অর্ধে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালন মুনাফায় প্রায় সাড়ে ৭ গুণ বেড়ে হয়েছে ২৬০ কোটি টাকা।

এরপর থেকেই প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দামে উল্লম্ফন ঘটতে থাকে। সেই সঙ্গে উধাও হয়ে যায় প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারের বিক্রেতারা। ফলে পরপর দুই দিন রূপালী ব্যাংকের শেয়ার কিনতে ব্যর্থ হন বিনিয়োগকারীরা।

রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন এই ব্যাংকটির মোট শেয়ারের ৯০ দশমিক ১৯ শতাংশই রয়েছে সরকারের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে ২ দশমিক ৯৪ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী এবং ৬ দশমিক ৮৭ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে।

সোমবার ডিএসইর প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, রূপালী ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন শুরু হয় ৩০ টাকা ৫০ পয়সা দরে। এই দামে ১ হাজার শেয়ার ক্রয়ের আবেদন পড়ে। তবে কেউ এই দামে শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি।

এরপর ৩০ টাকা ৬০ পয়সা দামে ২ হাজার শেয়ার ক্রয়ের আবেদন আসে। এ দামেও কেউ শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। এরপর কয়েক দফা দাম বেড়ে দুপুর দেড়টার দিকে ৩৩ টাকা ৫০ পয়সা দামে ২ লাখ ২৭ হাজার ৬৩৭টি শেয়ার ক্রয়ের আবেদন পড়ে। এই দামেও কোন বিনিয়োগকারী তাদের হাতে থাকা শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। ফলে রূপালী ব্যাংকের শেয়ারের বিক্রেতা শূন্যই থেকে গেছে।

আগের কার্যদিবস রোববার রূপালী ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন শুরু হয় ২৮ টাকা ৫০ পয়সা দরে। এই দামে ৩ হাজার শেয়ার ক্রয়ের আবেদন পড়ে। তবে কেউ এই দামে শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি।

এরপর ২৮ টাকা ৬০ পয়সা দামে ৩ হাজার শেয়ার ক্রয়ের আবেদন আসে। এ দামেও কেউ শেয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। এরপর কয়েক দফা দাম বেড়ে দুপুর ১টার দিকে ৩০ টাকা ৫০ পয়সা দামে ৬০ হাজার ৫৭৪টি শেয়ার ক্রয়ের আবেদন পড়ে। এই দামেও কোন বিনিয়োগকারী তাদের হাতে থাকা শ্রয়ার বিক্রি করতে রাজি হননি। ফলে রূপালী ব্যাংকের শেয়ারের বিক্রেতা শূন্যই থেকে যায়।