মাঠ গরম করতেই খালেদা কথা বলছেন: নাসিম

নিউজ ডেস্ক:  কোনো ইস্যু না পেয়ে অহেতুক মাঠ গরম করার জন্যই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া উল্টোপাল্টা কথা বলছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

রোববার দুপুরে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ১৪ দলের বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক সময়ে বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আপনার কথা কোনো কাজে আসবে না। সংবিধান অনুযায়ী সঠিক সময়েই নির্বাচন হবে। অযথা মাঠ করা করা বক্তব্য ও সন্ত্রাসীমূলক কাজ করে লাভ নেই। ১৪ দল ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে জনগণের ভোটের মাধ্যমে আগামী নির্বাচনে ক্ষমতায় আসবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ভোটের আগে ভ্যাট আইন দুই বছরের জন্য স্থগিতের ঘটনায় আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থেকে যাওয়ার ইঙ্গিত রয়েছে বলে বিএনপির এক বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় মোহাম্মদ নাসিম বলেন, আবগারি শুল্ক প্রত্যাহার এবং ভ্যাট আইন স্থগিত করার কারণে জনগণ ভোট দিলে আমাদের কী করার আছে। জনগণের জন্য যা কল্যাণকর সরকার সেটিই করেছে। আগামী নির্বাচনে কে ক্ষমতায় আসবে, সেবিষয়ে সিদ্ধান্তের মালিক জনগণ। জনগণের সিদ্ধান্তই ১৪ দল মেনে নেবে।

বাজেট পাসের পর বিএনপির মুখ বন্ধ হয়ে গেছে দাবি করে ১৪ দলের সমন্বয়ক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জনগণের অনুভূতি ও মনোভাব বুঝেছেন। এ কারণে আবগারি শুল্ক ও ভ্যাট আইন স্থগিত করেছেন। এতে করে বিএনপির মুখ বন্ধ হয়ে গেছে।

হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার বছর পূর্তি উপলক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওই ঘটনা মানুষের মনে ব্যাপকভাবে নাড়া দিয়েছে। সরকার ও প্রশাসনের আন্তরিক প্রচেষ্টায় তাদের যাত্রাপথ অনেকটা দুর্বল হয়েছে কিন্তু নিঃশেষ হয়ে যায়নি। এদেরকে চিরতরে নির্মূল করতে হলে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আন্তর্জাতিক জার্নালে বিশ্বের ১৮ নারীর তালিকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম আসায় ১৪ দলের পক্ষ থেকে তাকে অভিনন্দন জানানো হয়। এর আগে ১৪ দলের সভায় প্রয়াত গেরিলা মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হক মামা ও সঙ্গীত শিল্পী সুধীন দাশের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ূয়া, জাসদ একাংশের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, বিএম মোজাম্মেল হকসহ ১৪ দলের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।