মেক্সিকোকে হারিয়ে ফাইনালে জার্মানি

নিউজ ডেস্ক:  আগের দিনই লাতিন আমেরিকার দেশ চিলির কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়েছিল ইউরো চ্যাম্পিয়ন পর্তুগালকে। আর বৃহস্পতিবার ওই মহাদেশেরই আরেক দল মেক্সিকোর বিরুদ্ধে খেলতে নেমেছিল বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি। তবে এদিন কিন্তু শেষ হাসি হাসল ইউরোপই। কেন তারা বিশ্বচ্যাম্পিয়ন সেটা ফের একবার প্রমাণ করল জোয়াকিম লোর দল। মেক্সিকোকে হারাল ৪-১ গোলে। জোড়া গোল করলেন লিওন গোরেৎজকা। অপর দু’টি টিমো ওয়ার্নার ও আমিন ইউনেসের। মেক্সিকোর হয়ে একমাত্র গোলটি করেন মারকো ফাবিয়ান।

টুর্নামেন্ট শুরুর আগে জার্মানির এই ইয়ং ব্রিগেডকে নিয়ে অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। দলে তেমন বড় নাম নেই। থাকলেও হাতে গোনা মাত্র কয়েকজন। কিন্তু টুর্নামেন্টের ফাইনালে পৌঁছে জার্মানি প্রমাণ করে দিল ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের একবছর বাকি থাকলেও তাদের ‘বি’ দল পুরোপুরি তৈরি। মেসুট ওজিল, টনি ক্রুজ, টমাস মূলারদের উত্তরসূরীরা প্রথম দলে খেলার দাবি রাখে। যা দেখে সমালোচকরাও যেন চুপ করে গিয়েছে।

এদিন শুরু থেকেই মেক্সিকো রক্ষণের উপর চাপ বাড়ায় জার্মানরা। কোনওভাবেই আক্রমণের চাপ সামলাতে পারেনি আরাউজো-হেক্টর মোরিনোদের রক্ষণ। ফলস্বরূপ প্রথম ৮ মিনিটেই জোড়া গোল জার্মানদের। ৬ মিনিট ও ৮ মিনিটেই জোড়া গোল করেন গোরেৎজকা। এরপর গোটা প্রথমার্ধে গোল শোধের চেষ্টা করেও সফল হননি চিচারিতো, ডস স্যান্টোসরা। জার্মান রক্ষণের কাছে বারবার আটকে যায় সেই আক্রমণ। এর মধ্যেও বেশ

কয়েকবার গোলের সুযোগ পেয়েও হেলায় হারায় মেক্সিকো। ফলে প্রথমার্ধের শেষে ২-০ গোলেই এগিয়ে থাকে বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

দ্বিতীয়ার্ধেও খেলার রাশ নিজেদের হাতে রাখে জোয়াকিম লো’র ছেলেরা। একবারের জন্যও লাতিন আমেরিকার দেশটিকে খেলায় ফিরতে দেয়নি তাঁরা। এরমধ্যেই ৫৯ মিনিটে ফের একবার জার্মানির গোল। এবার টিমো ওয়ার্নার দলকে এগিয়ে দেন। এরপরেও সুযোগ এসেছিল মেক্সিকোর কাছে। কিন্তু বিপক্ষে যখন জার্মানির মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দল, তখন সত্যিই হয়ত করার কিছুই থাকে না। শেষ পর্যন্ত অবশ্য নির্ধারিত সময়ের একমিনিট আগে ফ্রি-কিক থেকে একটি দুর্দান্ত গোল করেন মেক্সিকোর ফাবিয়ান। কিন্তু ততক্ষণে জার্মানির ফাইনালে ওঠার টিকিট মোটামুটি পাকা হয়েই গিয়েছিল। এরপর অতিরিক্ত সময়ে মেক্সিকোর কফিনে শেষ পেরেকটি পোঁতেন আমিন ইউনেস।

ফাইনালে কোপা চ্যাম্পিয়ন চিলির মুখোমুখি খেলতে নামবে জার্মানি। খেলা ট্রাইবেকারে গড়ালে হয় ফেভরিট ধরা হবে চিলিকে। কিন্তু ফুটবল বিশেষজ্ঞদের মতে, জোয়াকিম লো’র এই জার্মানি স্যাঞ্চেজ, ভিদালদের সেই সুযোগটুকুও দেবে কিনা সন্দেহ।