ভারতকে নজরদারি ড্রোন দেবে যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ ডেস্ক:  ভারতকে নজরদারি ড্রোন বিক্রির প্রস্তাবে সায় দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার হোয়াইট হাউসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সাক্ষাতের পর একটি যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে ভারতকে সহযোগী দেশ বলে মানে যুক্তরাষ্ট্র। নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে দু’দেশের সামরিক সম্পর্ক আরও মজবুত করা হবে বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প এবং মোদি।

দীর্ঘ সম্পর্কের কথা মাথায় রেখে ভারতকে সমুদ্রে নজরদারি ড্রোন বিক্রিতে সায় দিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। এতে ভারতের শক্তি বৃদ্ধি পাবে আবার নিরাপত্তা ক্ষেত্রে দু’দেশেরই স্বার্থ রক্ষা হবে।

আগামী মাসে মালাবার উপকূলের কাছে ত্রিদেশীয় নৌ মহড়ায় যোগ দেবে ভারত, জাপান ও যুক্তরাষ্ট্র। এর আগে ভারত মহাসাগরে নজরদারি চালাতে ভারত মার্কিন প্রশাসনের হস্তক্ষেপ চেয়েছে।

ভারত মহাসাগরে চীনা আধিপত্য রুখতে গত বছর থেকেই নজরদারি ড্রোন কেনার চেষ্টা চালাচ্ছিল দিল্লি। প্রধানমন্ত্রীর ওয়াশিংটন সফরে সেই সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষর হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

২শ’ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ভারতকে ২২টি অত্যাধুনিক নজরদারি ড্রোন বিক্রি করবে যুক্তরাষ্ট্র। অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে ড্রোনগুলি তৈরি করছে জেনারেল অ্যাটমিক্স সংস্থা। সেগুলি এমকিউ-৯ রিপার বা প্রিডেটর বি নামে পরিচিত। বিমানের ইঞ্জিনে ডিজিটাল ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিন কন্ট্রোল (ডিইইসি) রয়েছে।

এতে ইঞ্জিনের ক্ষমতাও বাড়ে আবার অতিরিক্ত জ্বালানি খরচ হয় না। ৫০ হাজার ফুট উচ্চতায় ২৭ ঘণ্টা ধরে একটানা ওড়ার ক্ষমতা রয়েছে ড্রোনগুলির। সর্বোচ্চ বহন ক্ষমতা ১,৭৪৬ কিলোগ্রাম। সেগুলি হাতে পেলে ৭,৫০০ কিলোমিটার উপকূল রেখা বরাবর নজরদারি চালানো যাবে। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও অস্ট্রেলিয়া, ডোমিনিকান রিপাবলিক, ফ্রান্স, ইটালি, হল্যান্ড, স্পেন, ব্রিটেন এই ড্রোন ব্যবহার করছে।