মেসির তিরিশ

৩০ বছরের পরই নাকি ছেলেদের প্রকৃত পরিপক্বতা আসে। সে হিসাবে লিওনেল মেসি তো সবে পরিণত হয়ে ওঠার পর্যায়ে এলেন, গতকালই যে তিরিশে পা দিলেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড। নাহ, নিছক মজা করেই বলা। বয়সের অঙ্কটা যা-ই বলুক, মাঠে কতটা পরিণত, সেটি তো অনেক দিন ধরেই দেখিয়ে আসছেন তিনি।

২০০৪ সালে মাত্র ১৭ বছর বয়সে যখন বার্সেলোনার হয়ে অভিষেক, তখনই অনেক উচ্চাশা ছিল তাঁকে ঘিরে। বার্সেলোনার বয়সভিত্তিক দলগুলোয় দুর্দান্ত পারফরম্যান্সই ছিল সেই উচ্চাশার ভিত্তি। বার্সেলোনার সর্বকালের সেরা তো বটেই, অনেকেই তখন বলেছিলেন এই ছেলে হতে পারে সর্বকালেরই সেরা। ‘ফাস্ট ফরোয়ার্ড’ করে ১৩ বছর এগিয়ে আসুন, সর্বকালের সেরার প্রশ্নে কখনো একতরফা উত্তর পাওয়া যাবে না, তবে বর্তমান সময়ের সেরা দুই ফুটবলারের একজন নিশ্চিতভাবেই মেসি!

৩০-এ পা দেওয়া মানে একজন ফুটবলারের ক্যারিয়ারের গোধূলির দিকে এগিয়ে যাওয়াও। হয়তো মেসিকে বল পায়ে মুগ্ধতা ছড়াতে দেখার দিন আর খুব বেশি বাকি নেই। কে জানে, পাঁচ-ছয় বছরই হয়তো আর! তবে এটি নিশ্চিত, বাকি সময়টাতেও বল পায়ে তাঁর আঁকাবাঁকা দৌড়, নিখুঁত থ্রু, দুর্দান্ত পাসিং…গত ১৩ বছরের মতো এমন মুগ্ধতা-জাগানিয়া শতসহস্র মুহূর্ত উপহার দেবেন মেসি। এরই মধ্যে দুর্দান্ত রূপ পাওয়া রেকর্ডগুলোকে রেখে যাবেন আরও জ্বলজ্বলে অবস্থায়।