শেষ বেলায় জমজমাট ঈদের কেনাকাটা

নিউজ ডেস্ক: ঈদের বাকি আর মাত্র দুই দিন। ইতোমধ্যে স্বজনদের সঙ্গে ঈদ উদযাপন করতে নাড়ির টানে ঢাকা ছাড়তে শুরু করেছেন নগরবাসী। তারপরও রাজধানীতে ঈদের কেনাকাটা কমেনি। শপিং মলগুলোতে শুক্রবার ভিড় খুব বেশি না থাকলেও বিভিন্ন ছোটখাট মার্কেট ও ফুটপাতের দোকানে বিক্রেতারা দম ফেলারও সময় পাচ্ছেন না।

শুক্রবার সরেজমিনে রাজধানীর নিউমার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড, গাউছিয়া, রাপা প্লাজা, ফার্মগেট, গুলিস্তানসহ বেশ কিছু এলাকা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

নিউমার্কেটে বাজার করতে আসা বেসরকারি চাকরিজীবী বোরহান উদ্দিন জাগো নিউজকে জানান, চার ভাই-বোনের মধ্যে তিনি বড়। তাই সবার চেয়ে তার দায়িত্বটাও বেশি। প্রথম রোজা থেকেই সবার জন্য নতুন পোশাক কেনা শুরু করেছেন। তারপরও যেন কেনাকাটা শেষ হতেই চায় না। আজ সর্বশেষ দুই বছরের ভাগ্নির জন্য পোশাক কিনতে এসেছেন।

নিউমার্কেটের নিউ এরা দোকানের ম্যানেজার সেলিম আহমেদ জানান, সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দোকানে প্রচুর ক্রেতা। জুমার নামাজের পর ক্রেতা কিছুটা কমেছে। তবে সন্ধ্যার পর ফের ক্রেতা বাড়ার আশা প্রকাশ করেন তিনি।

রাজধানীর নিউমার্কেট, গাউছিয়া ও চাঁদনি চকের বিক্রেতারা জানান, ক্রেতারা এখনও ঘুরে ঘুরে পোশাক দেখছেন। গত শুক্রবারের চেয়ে বেচাকেনা বেড়েছে। গাউসিয়া-নিউমার্কেটের ফুটপাতেও চলছে জমজমাট কেনাবেচা।

তবে সবচেয়ে বেশি ভিড় লক্ষ্য করা গেছে নিউমার্কেটের সামনের ওভার ব্রিজকেন্দ্রিক ফুটপাতে। এ এলাকার ফুটপাতগুলোতে ছোট ছোট কিছু দোকান বা ভ্রাম্যমাণ দোকানে পছন্দের জিনিসপত্র কেনার জন্য সাধারণ লোকজনকে হুমড়ি খেয়ে পড়তে দেখা যায়। এখানে দেড়শ` থেকে তিনশ` টাকায় পাঞ্জাবি পাওয়া যাচ্ছে। এক দোকানে ৪ থেকে ৫ জন বিক্রেতা গলা ফাটিয়ে পাঞ্জাবির দাম হাঁকছেন ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে। ঢাকা কলেজের বিপরীতে ফুটপাতের মার্কেটের দোকানি জানে আলম জানান, বেচাকেনা ভালোই।

কিন্তু ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডে ক্যাটস আইয়ের একটি শো-রুমে। সেখানে তেমন ক্রেতার ভিড় চোখে পড়েনি। এ বিষয়ে ক্যাটস আইয়ের ম্যানেজার আমিনুল ইসলাম বলেন, প্রথম রোজা থেকেই বেশ ভালো বেচাকেনা হয়েছে তবে আজকে ক্রেতার সংখ্যা কম।

একই অবস্থা দেখা গেছে ধানমন্ডি ২৭ নম্বরের রাপা প্লাজা ও জেনেটিক প্লাজায়। এ মার্কেটগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা তুলনামূলক কম। রাপা প্লাজার ৪র্থ তলায় নারী পোশাকের শো-রুম জয়িতার বিক্রয় প্রতিনিধি সালমা আক্তার বলেন, এবার ঈদ উপলক্ষে বেচা-বিক্রি তেমন হয়নি। আজ সকাল থেকেও তেমন বেচাকেনা নেই।