ফিল্ডিংয়ে বাঁধা দেয়ার দায়ে আউট জেসন রয়!

নিউজ ডেস্ক:  শক্তিশালী প্রোটিয়াদের কম রানে আটকে ফেলা গেছে। এই আনন্দে খুশি হয়েই ব্যাটিং করছিল ইংলিশ ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু প্রায় সহজ টি- টোয়েন্টি ম্যাচটি রূপ নিল রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে। শেষ পর্যন্ত প্রোটিয়াদের কাছে ৩ রানে হেরে গেল স্বাগতিক ইংল্যান্ড! সিরিজ হয় ড্র।

এর পেছনে কারও একক ব্যর্থতাকে সামনে আনা ঠিক নয়। তবুও জেসন রয় যেভাবে আউটের শিকার হলেন, তাতে আফসোস আর দায়ী না করে উপায় নেই! কারণ, রয়ের আউটের পরই ম্যাচের রং বদলে যায়। আন্তর্জাতিক টি- টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ‘অবস্ট্রাকিং দ্য ফিল্ড’ আউটের শিকার হয়েছেন রয়। যদিও ওয়ানডেতে ৬ বার এমন আউটের ঘটনা ঘটেছে।

ম্যাচের এক পর্যায়ে ৩০ বলে যখন তাদের প্রয়োজন ৪২ রান, আর হাতে ৮ উইকেট। ক্রিস মরিসের করা ১৬ তম ওভারের প্রথম বলটা পয়েন্টে পাঠিয়েছিলেন লিভিংস্টোন। তার নিষেধ সত্ত্বেও সিঙ্গেল নিতে মরিয়া জেসন রয় দৌঁড় লাগালেন। তবে যখন বুঝলেন রান নেওয়া সম্ভব নয় তখন ঘুরে ক্রিজ মাড়িয়ে অন্য প্রান্তে ফেরার চেষ্টা করলেন। পৌঁছেও গিয়েছিলেন। কিন্তু প্রোটিয়া ফিল্ডার আন্দিলে ফিকোয়াওর থ্রো লাগে তার পায়ে। এখানেই ঘটে ক্রিকেট ইতিহাসের বিরল আউটের ঘটনা!

বলটি জেসন রয়ের পায়ে লাগার সাথে সাথে দক্ষিণ আফ্রিকা আউটের জোড়ালো আবেদন করে। থার্ড আম্পায়ারের দ্বারস্থ হন দুই ফিল্ড আম্পায়ার। কিছু সময় পর্যবেক্ষণ করে শেষ পর্যন্ত ‘অবস্ট্রাকিং দ্য ফিল্ড’ (ফিল্ডারকে বাধা দেওয়া) আইনে জেসন রয়কে আউট ঘোষণা করা হয়! এই অদ্ভুতুড়ে আউটের শিকার হওয়ার আগে ৪৫ বলে ৬৭ রান করেন রয়। এরপরই মূলত: ধস নামে ইংলিশ ব্যাটিং লাইনআপে। ইএসপিএন ক্রিকইনফো।