নৌপথে ঘরমুখো যাত্রীদের উপচে পড়া ভীড়

নিউজ ডেস্ক:  ঈদে উপলক্ষে নৌপথে ঘরমুখো যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড়ের ফলে অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা বৃদ্ধি পেয়েছে।

গত দুই দিনে বরিশাল নৌবন্দরে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া ১২ যাত্রীকে উদ্ধার করে শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ওই যাত্রীরা লঞ্চে ঢাকা থেকে বরিশালে আসার পথে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব খুইয়েছেন।

শনিবার অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তিকৃতরা হলেন- ঝালকাঠির নলছিটির বাসিন্দা সেলিম খান (৬০), পটুয়াখালীর বাউফলের বাসিন্দা আনসার উদ্দিন (৪০), নলছিটি এলাকার রাজীব (২৫), রাজবাড়ি এলাকার মকবুল (২২), শায়েস্তাবাদ এলাকার সোহেল (১৮), বানারীপাড়া এলাকার বাসিন্দা মো. মনির (২৫), মঠবাড়িয়া এলাকার সনিম (২২), মনির (২৩) এবং বাকেরগঞ্জের বাসিন্দা শুভ (২০)।

এর আগে গতকাল শুক্রবার পিরোজপুরের নেছারাবাদের বাসিন্দা সিয়ামসহ (২৫) অজ্ঞাতনামা ৩ জনকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে অজ্ঞাতনামা দুই ব্যক্তি (যাত্রী) সুস্থ হওয়ার পর পর শনিবার সকালে কাউকে কিছু না বলে হাসপাতাল ত্যাগ করেছেন।

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়া যাত্রীরা সুন্দরবন ও পারাবত কোম্পানির লঞ্চে ঢাকা থেকে বরিশালে এসেছিলেন। তারা কখন কীভাবে অজ্ঞান হয়ে যান তার কিছুই বলতে পারছেন না।

উদ্ধারের সময় তাদের সঙ্গে ব্যাগসহ অন্যান্য মালামাল না থাকায় ধারণা করা হচ্ছে অজ্ঞানপার্টির সদস্যরা ওইসব নিয়ে গেছে।

বরিশাল শের-ই- বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক সুব্রত পাল জানান, অসুস্থ এসব লঞ্চ যাত্রীদের অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা হাসপাতালে নিয়ে আসে। তারা দুই-এক দিনের মধ্যেই সুস্থ হয়ে যাবেন বলে চিকিৎসকরা জানান।

বরিশাল নৌ-ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই শফিকুল ইসলাম জানান, শুক্রবার ভোররাত থেকে শনিবার ভোররাত পর্যন্ত বরিশাল নদী বন্দরে যাত্রী নিয়ে আসা বিভিন্ন লঞ্চ থেকে এ পর্যন্ত ১২ জনকে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে অসুস্থ যাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে।