ক্লান্তি দূর করবে যেসব খাবার

নিউজ ডেস্ক:  শারীরিক নানা সমস্যায় ভুগতে পারেন যে কেউ। তবে অসুস্থ হওয়ার আগেই যদি কিছু বিষয় মেনে চলা যায়, তাহলে হয়তো এসব সমস্যা থেক দূরে থাকা সম্ভব। সুস্থতার জন্য খাবারেও গুরুত্ব রয়েছে অনেক।

আপনি কি উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন? অল্প পরিশ্রমেই পেশি ক্লান্ত হয়ে পড়ে? তাহলে কিছু খাবার আপনার জন্য স্বস্তির কারণ হতে পারে।

নানা ধরনের শারীরিক সমস্যা বা অসুখ থেকে মুক্তি পেতে এই সময়ের প্রতিবেদনে কিছু খবারের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

শরীরে ম্যাগনেসিয়ামের ঘাটতিতে অনেকভাবে অসুস্থ হতে পারেন যে কেউ। ফলে, আপনার দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে।

অ্যামন্ড বাদাম: এক আউন্স (২৮.৩৪ গ্রাম) অ্যামন্ডে দৈনন্দিন চাহিদার ১৯% পূর্ণ হবে। সুস্থতার জন্য এটি খুবই গুরুত্বপূণূ।

আভোকাডো: একটি আভোকাডোতেই রয়েছে প্রয়োজনীয় ম্যাগনেসিয়ামের ১৫%। ফলটি শরীরে জন্য অত্যন্ত উপকারী। এই ফলে রয়েছে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন কে ও প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে আপনাকে দীর্ঘজীবী করে তুলবে।

ডুমুর: বাজারে সস্তা হলেও ডুমুর নিয়ে একেবারেই হেলাফেলা করবেন না। এক কাপ ডুমুরে আছে চাহিদার ২৫% ম্যাগনেসিয়াম।

কলা: মাঝারি মাপের একটি কলা চাহিদার ৮% জোগান দেয়। নিয়মিত কলা খেলে শরীরের অন্য অসুস্থতাও দূর হয়।

ঢেঁড়স: এককাপ সেদ্ধ ঢেঁড়সে আপনি পাবেন চাহিদার ১৪% ম্যাগনেসিয়াম।

মসুর ডাল: এক কাপ মসুর ডালে রয়েছে চাহিদার ১৮% ম্যাগনেসিয়াম। এটি শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

কুমড়ার দানা: খাদ্য উপাদানের দিক থেকে কুমড়া দানা কিন্তু হেলাফেলার নয়। কুমড়ার দানা না-ফেল, শুকিয়ে রেখে দিন। পরে তরিতরকারিতে খান। এক আউন্স কুমড়ো দানায় আপনি পাবেন প্রয়োজনের ১৯% ম্যাগনেসিয়াম।

ডার্ক চকোলেট: শুধু ডার্ক চকোলেটেই আছে চাহিদার অর্ধেকেরও বেশি ম্যাগনেসিয়াম। এর পরিমাণ ৫৮ শতাংশ।

পালং শাক: এক কাপ পালংশাক প্রয়োজনের ৩৯% ম্যাগনেসিয়াম জোগান দেয়।

অতএব, চেষ্টা করুন উল্লিখিত খাবারগুলো ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খাদ্যতালিকায় রাখায়।