মোবাইল টাওয়ারের তেজস্ক্রিয় রশ্মি ক্ষতিকর

নিউজ ডেস্ক: দেশে বিদ্যমান মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ার থেকে যে রেডিয়শেন বা তেজস্ক্রিয় রশ্মি বিকিরণ ছড়ায় তা অনিরাপদ এবং জনস্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর।

বুধবার সরকারি একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। একই সঙ্গে টেলিযোগযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন বা বিটিআরসিকে এই বেশি পরিমাণের বিকিরণ কমিয়ে আনতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য প্রস্তাবও করা হয়েছে।

ঢাকা শহরের মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ার থেকে তেজস্ক্রিয় রশ্মি বিকিরণ কতোটা হচ্ছে তা পরীক্ষা করার জন্য ২০১৩ সালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

বুধবার ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কাজী জিনাত হক সরকারের দেওয়ার প্রতিবেদনটি হাই কোর্টে উপস্থাপন করেন।

প্রতিবেদনটি সংশোধন-বিয়োজনের পর বিচারপতি সৈয়দ রিফাতের আহমেদ ও বিচারপতি মো. সেলিমের বেঞ্চ আগামী ২৬ মার্চ এ বিষয়ে একটি আদেশ দেবেন।

এর আগে ২০১২ সালের অক্টোবরে হাই কোর্ট সরকারকে দেশের মোবাইল অপারেটরদের টাওয়ার থেকে রশ্মির বিকিরণ পরীক্ষা করার জন্য নির্দেশ দেন। সরকারকে দেওয়া ওই নির্দেশে জনস্বস্থ্যেরে উপর এই বিিকরিত রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব এবং পরিবেশের উপর এর প্রভাব কি পড়ছে তা নির্ধারণ করতে বলা হয়। যেখানে দুটি আলাদা প্রতিবেদন উপস্থাপন করতেও নির্দেশ ছিল।

আদালত একটি রিট আবেদনে বিভিন্ন মোবাইল ফোনের কিছু টাওয়ার পরিদর্শন শেষে বিকিরণ পরীক্ষা করে চার সপ্তাহের মধ্যে একটি প্রতিবেদন জমা দিতে বাংলাদেশ আণবিক শক্তি কমিশন (বিএইসি) এর চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এছাড়াও এর পাশাপাশি একটি সাত সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটি করে মানব শরীর ও পরিবেশের ওপর তেজস্ক্রিয়তার প্রভাব মূল্যায়ন করে সাত দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে স্বাস্থ্য সচিবকে আদেশ দিয়েছেন আদালত।